মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৬:০৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
রাস্তা ভেঙে খালে, ভেঙেছে ব্রীজ দুই যুগ পার হতে চললেও হয়ইনি রাস্তার সংস্করন কাঠালিয়ায় শোক দিবসের প্রস্তুতিসভা অনুষ্ঠিত শোক বার্তা : কাঠালিয়ায় সহকারি শিক্ষকের ইন্তেকাল ঝালকাঠিতে জমি নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় এক ব্যক্তি নিহত শোক বার্তা : বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী মো. আলমগীর হোসেন রোববার দুপুর ১২টা পর্যন্ত চলবে বাস ও লঞ্চ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন’র ২য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ঝালকাঠিতে কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কাঠালিয়ায় এক গৃহকর্তাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা ও টাকা-স্বর্ণালংকার লুট শোক বার্তা : কচুয়ার আজিজুর রহমান (পান্না) গাজীর ইন্তেকাল
ঝালকাঠিতে বসতঘর ফিরে পেতে মুক্তিযোদ্ধার সংবাদ সম্মেলন

ঝালকাঠিতে বসতঘর ফিরে পেতে মুক্তিযোদ্ধার সংবাদ সম্মেলন

ঝালকাঠি প্রতিনিধি:

ঝালকাঠি শহরের ধোপারচক এলাকার এক মুক্তিযোদ্ধার বসতঘর জবরদখলের চেস্টার অভিযোগ উঠেছে একজন আইনজীবীর বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (৬ জুলাই) বেলা ১১টায় ঝালকাঠি টেলিভিশন সাংবাদিক সমিতি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন এ অভিযোগ করেন মুক্তিযোদ্ধা আনছার উদ্দিন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগে মুক্তিযোদ্ধা আনছার উদ্দিন জানান, ঝালকাঠি শহরের ধোপরচক এলাকায় তার ১৮ সহা¯্রাংশ সম্পত্তি আইনজীবী এসএম ফজলুল হক কুক্ষিগত করে রেখেছেন।

এ বিষয়ে তিনি মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী, জেলা প্রশাসক ও থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। কিন্তু কোন প্রতিকার না পেয়ে তিনি বর্তমানে এই করোনা মহামারীর মধ্যে বসত ঘর ছাড়া হয়ে পরিবার নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

লিখিত বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধা আনছার উদ্দিন আরো বলেন, স্বাধিনতা পরবর্তী সময়ে আজিজ খানের কাছ থেকে তিনি ১২০ সহা¯্রাংশ সম্পত্তি ক্রয় করেন। পরে স্কুল শিক্ষক ফকরুল আলম ও আইনজীবী এসএম ফজলুল হকের কাছে তার জমি বিক্রর পর বাকি ১৮ সহা¯্রাংশ সম্পত্তির উপর একটি টিনসেড ঘর নিমার্ণ করে বসবাস শুরু করেন তিনি।

পরবর্তীতে পারিবারিক কারণে ঘরটি তালাবদ্ধ করে আনছার উদ্দিন তার গ্রামের বাড়ি প্রতাপে চলে যান। এরপর আইনজীবী এসএম ফজলুল হক প্রভাব খাটিয়ে সেই ঘরটি জবরদখলের চেস্টা চালায়। মুক্তিযোদ্ধা আনছার উদ্দিন তার বসতঘরে আসতে চাইলে এসএম ফজলুল হক মামলা দিয়ে তাকে হয়রানী ও খুন জখমের হুমকি দেন। গত ২৭ জুন আনছার উদ্দিন তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে উক্ত ঘরে অবস্থানকালে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর এসে ঘরে তালা দিয়ে চাবি তার জিম্মায় রাখেন।

এ অবস্থায় একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বসতঘর ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য এবং প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন আনছার উদ্দিন।

এ বিষয়ে কাউন্সিলর তরুন কর্মকার বলেন, শান্তিশৃংখলা রক্ষায় আমি আপাতত ঘরটি আমার জিম্মায় রেখেছি। পরবর্তীতে উভয়পক্ষকে নিয়ে বসে সমাধান করা হবে। অভিযোগ অস্মীকার করে আইনজীবী এস এম ফজলুল হক বলেন, ঐ জমির প্রকৃত মালিক আমি। ওদের নামে ভ‚লক্রমে রেহর্ড হয়েছে। রেকর্ড সংশোধনের জন্য আমি আদালতে মামলা করেছি। বিষয়টি আদালাতে বিচারাধীন রয়েছে।

 

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন













All rights reserved@KathaliaBarta-2021
Design By Rana