শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ১১:০২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কাঠালিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ তাপস কুমারের সাংবাদিকের সাথে অশোভন আচারন

কাঠালিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ তাপস কুমারের সাংবাদিকের সাথে অশোভন আচারন

বিশেষ প্রতিনিধি:

ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে স্যার না ডাকায় ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিকের সাথে অশোভন আচারন করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটে ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলা বিজয় টিভির ঝালকাঠি প্রতিনিধি ও দৈনিক ভোরের কাগজ, দৈনিক সংবাদ পত্রিকার কাঠালিয়া প্রতিনিধি এইচ এম নাসির উদ্দিন আকাশের সাথে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ তাপস কুমার তালুকদারকে করনার ভ্যাকসিন সংক্রান্ত একটি নিউজের তথ্য নেয়ার জন্য সাংবাদিক এইচ এম নাসির উদ্দিন আকাশ মুঠো ফোনে কল দিয়ে দাদা বলে ডাকায়, তাৎক্ষনিক ভাবেই ডাক্তার সাহেব মোবাইলের অপার প্রান্ত থেকে ক্ষেপে যান এবং বলেন “তুই আমাকে স্যার না বলে দাদা ডাকলি কেন? আমি তোর কিসের দাদা? তুই আমাকে সব সময় স্যার ডাকবি”। এর পর কোন তথ্য না দিয়ে তিনি ফোনটি কেটেদেন।

বাংলাদেশের সংবিধানে প্রজাতন্ত্রের কোন কর্মকর্তাকে স্যার ডাকার বিধান না থাকলেও ডাঃ তাপস সাহেবকে স্যার না ডাকায় ক্ষেপে গিয়ে সাংবাদিকের সাথে অশোভন আচারন করায় সরকারি চাকুরি বিধির নিয়ম শৃংখলা লংঙ্গন করা হয়েছে এমনটাই মনে করছেন স্থানীয় সাংবাদিকসহ বিজ্ঞজনরা। আইন বিজ্ঞরা মনে করেন অশোভন আচারন করে ডাক্তার সাহেব সংবিধান পরিপন্থি কাজ করেছেন তাই বিধি লংঙ্গন করায় তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া যায়।

এ ব্যাপারে সাংবাদিক এইচ এম নাসির উদ্দিন আকাশ জানান, “গত ২৯ ডিসেম্বর দুপুরে আমি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ তাপস কুমার তালুকদারকে একটি নিউজের তথ্যের জন্য ফোন দিলে তিনি আমাকে তুই বলে গালাগালি করে, তার কথায় আমি খুব কষ্ট পাই। আমি সাংবাদিক ছাড়াও একজন জনপ্রতিনিধি আমার সাথে তার মত একজন কর্মকর্তা এমন ব্যবহার করতে পারেননা। আমার দুঃখ হয় যে এ ডাঃ রোগীদের সাথে কী আচারন করতে পারে? আর রোগীরাও তার কাছ থেকে কী ধরনের সেবা পায়? তার সকল কথা আমার ফোনে রেকর্ড রয়েছে”।

 

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন













All rights reserved@KathaliaBarta-2021
Design By Rana