এখন সময় :
,
kathaliabarta.com

অবশেষে আমুয়া সর্দার পাড়ার বাসিন্দাদের স্বজনদের কবরেই বসবাসের অবসান ঘটল

মো. শহীদুল আলম :
অবশেষে আমুয়া সর্দার পাড়ার (চড় পাড়া) হাজারো বাসিন্দাদের শত বছরের স্বপ্ন পূরণ হলো। অবসান ঘটলো সাথে কবরেই স্বজনদের বসবাসের।

ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার আমুয়া পূর্বপাড়া সর্দার পাড়া। তথ্যমতে, প্রায় দেড়/ দু’শ বছর পূর্বে আমুয়া হলতা নদীর মোহনার পূর্বপাড় (হাসপাতাল পাড়) জেগে উঠা চড়ে বসতি স্থাপন করে জেলে সম্প্রদায়ের কিছু লোক। যুগের পর যুগ ও বংশ পরস্পরায় বর্তমানে এ পাড়ায় প্রায় দু’সহ্রাধিক শিশু-নারী ও পুরষের বাসবাস। এদের অধিকাংশ পেশায় মৎস্য ব্যবসা ও শিকারের সাথে জড়িত। এদের নিজস্ব কোন জয়গা জমি না থাকায় পূর্ব পূরুষ ও বাব-দাদা থেকেই স্বজনদের মরদেহ বা মৃত্যু ব্যক্তির লাশ নিজ ঘরের মেঝে, রান্নাঘর ও আঙ্গীনায় দাফন করা হতো। বিষয়টি শুনতে অতি অবাস্তব, অদ্ভুত ও অমানবিক লাগলেও নিয়তির নির্মম শিকার এ চর বাসীরা। নিজস্ব বা নির্ধারিত একখন্ড জমির অভাবে শত অনিচ্ছা সত্বেও বসত ঘরের মেঝেতে আপন বাবা-মা বা সন্তানকে কবরস্থ করে আবার ওই ঘরেই বসবাস করতো স্বজনরা। এমনও প্রমাণ মিলেছে কোন কোন ঘরের মেঝে বা আঙ্গীনা ৮/১০টি কবরও রয়েছে।

এনিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসন বিভিন্ন মহলে আবেদন নিবেদন করেও দীর্ঘ যুগেও মৃত্যুও পর শেষ ঠিকানাটুকুর ব্যবস্থা মিলেনি সরকারি ও বেসরকারিভাবে।

স্থানীয় সংবাদকর্মীরা প্রিন্ট ও ইলিক্ট্রনিক্স মিডিয়ার নিয়মিত প্রকাশ ও প্রচারের ফলে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় ও পাটিখালঘাটা ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান রত্তন মিয়ার পুত্র কোরিয়া প্রবাসী মো. মিজানুর রহমানের ব্যক্তিগত তহবিল এবং রোটারী ক্লাব অব ঢাকার প্যারাডাইস ও খুলনা সিটি ক্লাবের অর্থায়নে ৯৩ ফুট দৈর্ঘ ও ৭৯ প্রস্থ জমির উপর ৭ লাখ টাকা ব্যয়ে আমুয়া সরদার পাড়ায় নির্মাণ করা হয় নির্ধারিত গণকবরস্থান। এছাড়া বিশুদ্ধ পানীয় জলের জন্য স্থাপন করা হয়েছে একটি গভীর নলকুপ।

সোমবার (১১ডিসেম্বর) বিকেলে নব-নির্মিত এ গণকবরস্থানের শুভ উদ্বোধন করেন ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, সকল মানুষের জন্য প্রশাসন, এবং মানুষ মানুষের জন্যে। এধরনের ক্ষুদ্রক্ষুদ্র অর্জন একদিন বাংলাদেশকে অনেক দূরে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

উপজেলা পরিষদ, প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ এলকাবাসীর ঐক্যান্তি প্রচেষ্টায় সুন্দরভাবে এ ভাল কাজটি সম্পন্ন করায় সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান এবং এ গণকবরস্থানটি নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষা ও উন্নয়নে সার্বিক সহায়তারও আশ্বাস দেন জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ডা. শরীফ মুহম্মদ ফয়েজুল আলম এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক মো. গোলাম কিবরিয়া সিকদার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. এমাদুল হক মনির, রোটারী ক্লাব অব ঢাকার প্যারাডাইসের প্রেসিডেন্ট মো. আ. বাতেন, সহকারী গভর্নর মো. এহসানুল হক, আইপিপি মো. মেজবাউল আলম, বুলিটিং এডিটর মো. শওগাতুল ইসলাম।
অন্যন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আমুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মো. আমিরুল ইসলাম ফোরকান সিকদার, উপাধ্যক্ষ মো. আবি আবদুল্লাহ আসান চুন্ন, রোটারী ক্লাব অব ঢাকার প্যারাডাইসের সদস্য মো. গোলাম মোস্তফা, ইউপি সদস্য মো. আনোয়ার হোসেন ও সমাজ সেবক মো. আ. হাই প্রমুখ।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় সর্দার পাড়ার একাধিক বাসিন্দা কাঠালিয়া বার্তা‘কে জানায়, এ গণকবরস্থানটি নির্মাণে তাদের নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন দেখিছে। তারাও যে মানুষ সেই সামাজিক মর্যাদাটুকু  আজ পেয়ে কৃতজ্ঞতার প্রকাশের ভাষা খুঁজে পাচ্ছেন না।

Share Button
Print Friendly, PDF & Email
নোটিশ :   কাঠালিয়া বার্তার প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি - সম্পাদক
সম্পাদক ও প্রকাশক: মোঃ শহীদুল আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মোহাম্মদ আবদুল হালিম
বার্তা সম্পাদক: মোঃ সাকিবুজ্জামান সবুর
সম্পাদকীয় কার্যলয়: কাঠালিয়া বার্তা, কলেজ রোড, কাঠালিয়া, ঝালকাঠি।
ইমেল: kathaliabarta@gmail.com, মুঠোফোন: ০১৭১২৫২৯২৬৬, ০১৭৭৪৯৩৭৭৫৫